নতুন জন্ম নিবন্ধন আবেদন ফরম পুরন করে নিন

নতুন জন্ম নিবন্ধনের জন্য আবেদন ফরম পুরন ঘরে বসে

আপনি যদি আপনার রিলেটিভ আত্মীয় কিংবা অন্য যে কারো জন্য নতুন জন্ম নিবন্ধনের জন্য আবেদন করতে চান? তাহলে এই আর্টিকেলের মাধ্যমে নতুন জন্ম নিবন্ধন আবেদন ফরম পূরণ সম্পর্কে বিস্তারিত দেখানো হবে।

আজকের এই আর্টিকেলে বিস্তারিত আলোচনা করা হবে, কিভাবে আপনি চাইলে খুব সহজেই নতুন জন্ম নিবন্ধন আবেদন করতে পারবেন।

ঘরে বসে একেবারে সিগনেচার দেয়ার আগ অব্দি কিভাবে প্রসেসটি চালিয়ে নিবেন, সেই সম্পর্কে এই আর্টিকেলে বিস্তারিত আলোচনা করা হবে।

তাহলে আর দেরি না করে এখুনি জেনে নেয়া যাক, কয়েকটি স্টেপ ব্যবহার করার মাধ্যমে কিভাবে আপনি চাইলে খুব সহজেই নতুন জন্ম নিবন্ধন আবেদন ফরম পূরণ করতে পারেন।

নতুন জন্ম নিবন্ধনের জন্য আবেদন করার নিয়ম

আপনি চাইলে ভিন্ন ভিন্ন কয়েকটি স্টেপ ফলো করার মাধ্যমে খুব সহজেই ঘরে বসে নতুন জন্ম নিবন্ধন আবেদন করতে পারেন এবং আবেদনের ফরম পূরণ করতে পারেন।

স্টেপঃ১- জন্ম নিবন্ধন এর ওয়েবসাইট

আবেদনের ফরম পূরণ করার জন্য একেবারে প্রথম স্টেপ হিসেবে, আপনাকে সর্বপ্রথম বাংলাদেশের জন্ম নিয়ন্ত্রণের ওয়েবসাইটে ভিজিট করতে হবে।

Apply Now

 

যখনই উপরে উল্লেখিত লিংকে ভিজিট করবেন, তখন নিম্নলিখিত স্ক্রীনশটএর মত একটি পেইজ দেখতে পারবেন।

সেই পেজটিতে আপনার বর্তমান ঠিকানা, স্থায়ী ঠিকানা, সিলেক্ট করে নেয়ার মত অপশন পাবেন।

এখানে আপনি যে ঠিকানা সিলেক্ট করে নিবেন, সেই ঠিকানার মধ্যে আপনার জন্ম নিবন্ধনের কার্ডটি চলে আসবে এবং সেখান থেকে আপনি এই কার্ডটি সংগ্রহ করবেন।

সেজন্য আপনার বর্তমান ঠিকানা কিংবা স্থায়ী ঠিকানা যে কোন ঠিকানা হোক না কেন, সেটি সিলেক্ট করার ক্ষেত্রে বুঝেশুনে সিলেক্ট করুন এবং তারপরে “পরবর্তী” অপশনের উপরে ক্লিক করুন।

নতুন জন্ম নিবন্ধনের জন্য আবেদন ফরম পুরন ঘরে বসে

স্টেপঃ২- জন্মস্থান নির্বাচন করা

এবার আপনি একটি গুরুত্বপূর্ণ ধাপে চলে আসবেন, সেই ধাপে নিবন্ধনকারী ব্যক্তির পরিচিতি জন্মস্থান এর ঠিকানা ইত্যাদি যথাযথভাবে বসিয়ে দিতে হবে।

এখানে যে সমস্ত বক্স মেনশন করা হয়েছে, সে সমস্ত বক্সে যে ব্যক্তির জন্ম নিবন্ধন করতে চান, সেই ব্যক্তির নাম যথাযথভাবে বসিয়ে দিন এবং তার ঠিকানা যথাযথভাবে বসিয়ে দিন।

এছাড়াও সেই ব্যক্তির ডাকঘর, গ্রাম, পাড়া-মহল্লা যতগুলো ইনফরমেশন দেয়া দরকার সব গুলো ইনফরমেশন দেওয়ার মতো বক্স দেখতে পাবেন, সেগুলো বুঝেশুনে ভালোভাবে বসিয়ে দিন।

এবং তার পরে “পরবর্তী” নামক অপশনটি উপরে ক্লিক করুন।

নতুন জন্ম নিবন্ধনের জন্য আবেদন ফরম পুরন ঘরে বসে

স্টেপঃ৩- পিতামাতার জন্মনিবন্ধন সত্যতা

যখনই পরবর্তী নামক অপশনের উপরে ক্লিক করবেন, তখন আরেকটি গুরুত্বপূর্ণ তবে চলে আসতে পারবেন।

যেখানে আপনার পিতার জন্ম নিবন্ধন নাম্বার, মাতার জন্ম নিবন্ধন নাম্বার এবং তাদের সমস্ত ইনফরমেশন গুলো লিখে দেয়ার মত অপশন পাবেন।

সমস্ত ইনফরমেশন গুলো যথাযথভাবে লিখে দিন, ইনফরমেশন গুলো সঠিকভাবে লেখার জন্য তাদের যে জাতীয় পরিচয়পত্র কার্ড রয়েছে, সেই আইডি কার্ড ব্যবহার করুন।

তাহলে এখানে যে সমস্ত ইনফরমেশন দেবেন সেই সমস্ত ইনফরমেশন গুলো ভুল হয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা খুবই কম থাকবে।

সমস্ত ইনফরমেশন গুলো যথাযথভাবে দেয়ার পরে পুনরায় “পরবর্তী” নামের অক্ষরের উপরে ক্লিক করুন।

নতুন জন্ম নিবন্ধনের জন্য আবেদন ফরম পুরন ঘরে বসে

যখনই আপনি পিতা-মাতার জন্ম নিবন্ধন কার্ড এর সম্পূর্ণ তথ্য গুলো দিয়ে দিবেন এবং সেগুলো যদি সঠিক থেকে থাকে তাহলে আপনি পরবর্তী অপশনে চলে যেতে পারবেন।

স্টেপঃ৪ – বর্তমান এবং স্থায়ী ঠিকানা ফিলাপ করা

এবার আপনার বর্তমান এবং স্থায়ী ঠিকানার উদ্দেশ্যে, বর্তমান এবং স্থায়ী ঠিকানা যথাযথভাবে ফিলাপ করে নিতে হবে।

পিতা-মাতার জন্ম নিবন্ধন নাম্বার যথাযথভাবে দেয়ার পরে নিম্নলিখিত স্ক্রীনশটএর মত একটি পেইজ দেখতে পারবেন এবার এই পেজটিতে “কোনোটিই নয়” নামের যে অপশন রয়েছে, সেই অপশনটিতে ক্লিক করুন।

এবার আপনি পূর্বে যে জন্মস্থান এর ঠিকানা দিয়েছিলেন, সেই জন্মস্থান এর ঠিকানা এবং বর্তমান জন্মস্থান এর ঠিকানা যদি ঠিক থাকে থাকে, তাহলে বর্তমান জন্মস্থানে ঠিকানা এবং স্থায়ী ঠিকানা এই অপশনটি সিলেক্ট করে নিন।

নতুন জন্ম নিবন্ধনের জন্য আবেদন ফরম পুরন ঘরে বসে

আপনার যে বর্তমান ঠিকানা এবং স্থায়ী ঠিকানা দুটি যদি থেকে থাকে, তাহলে দুইটি ঠিকানা যে একই দেয়ার মত যে চেকমার্ক রয়েছে, সেটির উপর ক্লিক করে দিন।

যদি এগুলো এক থেকে না থাকে, তাহলে পুনরায় বক্সগুলো ফিলাপ করে দিন এবং তারপরের “পরবর্তী” নামের অপশন রয়েছে ওই অপশনটিতে ক্লিক করে দিন।

স্টেপঃ৫- আবেদনকারীর সম্পূর্ণ তথ্য

এবার আপনি যে জন্ম নিবন্ধনের জন্য আবেদন করছেন, সেই আবেদন এর বিস্তারিত তথ্য ফিলাপ করে নিতে হবে।

যে ব্যক্তির জন্ম জন্ম নিবন্ধনের আবেদন করছে ন সেই ব্যক্তির আত্মীয়তার সূত্রে আপনি কি হলো সেটি সিলেক্ট করে নিবেন।

এবং আপনার নাম ফোন নাম্বার ইমেইল এড্রেস ইত্যাদি লিখে দিবেন এবং পরিশেষে “পরবর্তী” নামের উপর ক্লিক করুন।

আবার পুনরায়, আপনি যে ইনফরমেশনগুলো দিয়েছিলেন, সেই ইনফরমেশন গুলো দেখে নিন এবং তার পরে পরবর্তী বাটনে ক্লিক করুন এবং আপনার আবেদনটি সম্পন্ন করে নিন।

আবেদনটি সফলভাবে সম্পন্ন করে নেবেন তখন এই আবেদন ফরম প্রিন্ট আউট কঁপি ডাউনলোড করে নেয়ার অপশন পাবেন।

এই আবেদন ফরমের প্রিন্ট কঁপি ডাউনলোড করে নিন।

উপরে উল্লেখিত উপায়ে আপনি খুব সহজেই জন্ম নিবন্ধনের আবেদন করতে পারবেন এবং জন্ম নিবন্ধন যখন তৈরী হয়ে চলে আসবে, তখন এটি আপনার নিকটস্থ ইউনিয়ন পরিষদে গিয়ে সিগ্নেচার করে নিয়ে আসতে পারবেন।

যখন আপনি ইউনিয়ন পরিষদ থেকে সিগনেচার করিয়ে নিয়ে আসতে পারবেন, তখন আপনার জন্ম নিবন্ধন তৈরি করার কাজটি সফলভাবে সম্পন্ন হয়ে যাবে।

উপরে উল্লেখিত উপায়ে আপনি যে কারো নতুন জন্ম নিবন্ধন আবেদন ফরম ফিলাপ করে নিতে পারবেন এবং জন্ম নিবন্ধনের জন্য আবেদন করে নিতে পারবেন।

জন্ম নিবন্ধন আবেদন সংক্রান্ত কিছু প্রশ্ন উত্তর

জন্ম নিবন্ধন আবেদন সংক্রান্ত বিভিন্ন রকমের প্রশ্ন উত্তর আমাদের মাথার মধ্যে প্রায়ই ঘুরপাক খায়।

এবার তাহলে জেনে নেয়া যাক, এই রিলেটেড কিছু কমন প্রশ্ন উত্তর, যা আপনার জানা প্রয়োজন রয়েছে।

শিশুর জন্মের কত দিনের মধ্যে জন্ম নিবন্ধন করতে হয়?

শিশুর জন্মের সর্বোচ্চ ৪৫ দিনের মধ্যে জন্ম নিবন্ধন করার সবচেয়ে বেশি উত্তম।

তবে কোনো ক্ষেত্রে যদি জন্ম নিবন্ধন করাতে ব্যর্থ হন, তাহলে আপনার পছন্দমত যেকোনো একটি বয়সে নিবন্ধন করাতে পারেন।

তবে শিশুর বয়স যতবেশী বৃদ্ধি পাবে প্রয়োজনীয় কাগজপত্র বেশি দিতে হয়। যা অত্যন্ত ঝামেলার বিষয় হতে পারে।

নতুন জন্ম নিবন্ধন আবেদন করতে কি কি প্রয়োজন হয়?

নতুন জন্ম নিবন্ধনের আবেদন করার জন্য খুবই স্বাভাবিক ভাবে পিতা-মাতার জাতীয় পরিচয়পত্র জন্ম নিবন্ধন নাম্বার ইত্যাদি প্রয়োজন হয়।

আমি কি দ্বিতীয়বার জন্ম নিবন্ধনের আবেদন করতে পারবো?

উত্তর হলো, না। আপনি কখনোই চাইলে কোন ইনফরমেশন দিয়ে দ্বিতীয়বার জন্ম নিবন্ধনের জন্য আবেদন করতে পারবেন না।

কারণ, আপনি যদি এখন ইনফরমেশন দিয়ে দ্বিতীয়বার জন্ম নিবন্ধনের জন্য আবেদন করার চেষ্টা করেন, তাহলে সার্ভার এরর দেখাবে এবং দেখাবে যে আপনার ইনফরমেশনগুলো অলরেডি সার্ভারে রয়েছে।

কোথায় জন্ম নিবন্ধন করা যাবে?

আপনি চাইলে আপনার নিকটস্থ ইউনিয়ন পরিষদের উপস্থিত হওয়ার মাধ্যমে খুব সহজে জন্ম নিবন্ধন করার কাজ সম্পন্ন করে নিতে পারেন।

এছাড়াও আপনি চাইলে উপরে উল্লেখিত প্রসেস অনুযায়ী অনলাইনের মাধ্যমে ঘরে বসে জন্ম নিবন্ধন আবেদন করতে পারেন।

পিতা-মাতার জন্ম নিবন্ধন না থাকলে, নিবন্ধন করার সম্ভাবনা আছে কি?

কোন কারণে যদি আপনার পিতা-মাতার জন্মনিবন্ধন না থেকে থাকে, তাহলে আপনার নিবন্ধন করার সম্ভবনা নেই।

কারণ, এটি বর্তমানে একটি আইনে পরিণত হয়েছে। পিতা-মাতা জন্ম নিবন্ধন অবশ্যই বাধ্যতামূলক,
সন্তানের জন্ম নিবন্ধন করার ক্ষেত্রে।

নতুন জন্ম নিবন্ধন আবেদন কিভাবে করতে হয় এবং জন্ম নিবন্ধন আবেদন করার নিয়ম রয়েছে সে সম্পর্কে আশাকরি বিস্তারিত জেনে নিতে পেরেছেন।

এছাড়াও জেনে নিন:

Leave a Comment

Your email address will not be published.

Scroll to Top