জন্ম তারিখ দিয়ে জন্ম নিবন্ধন যাচাই করার নিয়ম

জন্ম তারিখ দিয়ে জন্ম নিবন্ধন যাচাই করা কি সম্ভব হবে? যদি সম্ভব হয় তাহলে কিভাবে সেটি করতে পারবেন? সেই সম্পর্কে আজকের এই আর্টিকেলে আলোকপাত করা হবে।

আমাদের মধ্যে এরকম অনেকেই রয়েছেন, যারা কিনা এই সম্পর্কে জেনে নিতে চান যে তাদের কাছে একটি জন্মতারিখ রয়েছে, সেটির মাধ্যমে তারা জন্ম নিবন্ধন যাচাই করতে পারবেন কিনা?

আপনি যদি কোন কারণে আপনার জন্ম নিবন্ধন কার্ড হারিয়ে ফেলেন এবং শুধুমাত্র জন্ম তারিখ এবং নাম আপনার কাছে বাকি থাকে, তাহলে আপনি জন্ম তারিখ মনে রাখার মাধ্যমে সেটি কিভাবে উদ্ধার করবেন?

জন্ম তারিখ দিয়ে জন্ম নিবন্ধন যাচাই

যেহেতু আপনি আপনার জন্ম নিবন্ধন হারিয়ে ফেলেছেন, এবং আপনার কাছে আপনার নাম এবং জন্মতারিখ মনে আছে, সেজন্য আপনাকে এটি উদ্ধার করে নিতে হবে।

আপনি চাইলে নিম্নলিখিত স্টেপ অনুসরণ করার মাধ্যমে আপনার জন্ম তারিখ দিয়ে জন্ম নিবন্ধন উদ্ধার করতে পারবেন।

দুর্ভাগ্যজনক হলেও সত্য, ইন্টারনেটে এরকম কোন সোর্স নেই, যে সোর্সের মাধ্যমে আপনি শুধুমাত্র নাম এবং জন্মতারিখ দিয়ে জন্ম নিবন্ধন যাচাই করতে পারেন।

  • আপনি যেহেতু ইনফরমেশনগুলো ভুলে গেছেন কিংবা হারিয়ে ফেলেছেন, সেজন্য আপনাকে আপনার নিকটস্থ ইউনিয়ন পরিষদে চলে যেতে হবে।
  • এবার আপনি যেহেতু আপনার ইনফরমেশন গুলো হারিয়ে ফেলেছেন সেজন্য, ইউনিয়ন পরিষদের যাওয়ার সময় আপনার পিতা-মাতার জন্ম নিবন্ধন কার্ড সাথে নিয়ে যাবেন।
  • পিতা-মাতার জন্ম নিবন্ধন কার্ড এবং আপনার জন্ম নিবন্ধন ইনফরমেশনগুলো যদি আপনার সাথে থাকে, তাহলে সেখানকার রিসার্চাররা আপনার জন্ম নিবন্ধন টি খুঁজে বের করতে সহায়তা করতে পারে।
  • যদি আপনার কপাল ভালো থাকে, তাহলে আপনি জন্মনিবন্ধনটি খুঁজে পেতে পারেন। অর্থাৎ, আপনার জন্ম নিবন্ধনে ইনফর্মেশন আপনি খুঁজে পেতে পারেন।

প্রায়ক্ষেত্রে, সময় আপনার পক্ষে নাও যেতে পারে। সে ক্ষেত্রে নিম্নলিখিত ইনফর্মেশন গুলোর দিকে লক্ষ্য রাখুন।

জন্ম নিবন্ধন খুঁজে পাওয়া না গেলে

কোন কারণে ইনফরমেশন দেওয়ার পরেও আপনি যদি জন্ম নিবন্ধন খুঁজে পেতে ব্যর্থ হন, অর্থাৎ দায়িত্বরত কর্মকর্তারা আপনাকে জন্ম নিবন্ধন দিতে ব্যর্থ হয়, তাহলে নিম্নলিখিত তথ্যের দিকে নজর রাখুন।

নিকটস্থ ইউনিয়ন পরিষদের চলে যাওয়ার পরে তাদেরকে এই বিষয়টি ভালোভাবে বুঝিয়ে বলতে হবে যে আপনি ইনফরমেশন গুলো হারিয়ে ফেলেছেন, এবং আপনি নতুন জন্ম নিবন্ধনের জন্য আবেদন করতে চান।

তাছাড়াও আপনি যদি ঘরে বসে জন্ম নিবন্ধনের জন্য আবেদন করতে চান, সেটিও নিম্নলিখিত আর্টিকেলটি দেখে নেয়ার মাধ্যমে করে ফেলতে পারবেন।

তবে আপনি যদি সেটি করতে অক্ষম হন। তাহলে আপনার নিকটস্থ ইউনিয়ন পরিষদে চলে যান এবং তারপরে জন্ম নিবন্ধনের জন্য আবেদন করুন এবং নতুন একটি জন্মনিবন্ধন করে ফেলুন।

যখনই আপনি নতুন জন্ম নিবন্ধনের জন্য আবেদন করার কাজ সম্পন্ন করে ফেলবেন, তখন নতুন করেন ইনফোরনেশন দেয়ার মাধ্যমে পুনরায় আপনি নতুন জন্ম নিবন্ধন ব্যবহারকারী হতে পারবেন।

শেষ কথাঃ যেহেতু জন্ম নিবন্ধন আপনার নিজস্ব একটি ডকুমেন্ট। সেজন্য এটি নির্দিষ্ট স্থানে সুরক্ষিত করে রাখা প্রত্যেক নাগরিকের জন্য প্রয়োজনীয় দায়িত্ব।

কারণ, আপনি যদি ইনফর্মেশন কে হারিয়ে ফেলেন তাহলে বিভিন্ন রকমের অসুবিধার মধ্যে পড়তে পারেন। এবং এটি পুনরায় রিকভার করার জন্য আপনাকে অনেক খাটনি খাটতে হতে পারে।

তাছাড়াও, আপনি যদি কোনো কারণে সেটি ভুলে যান কিংবা হারিয়ে ফেলেন, তাহলে তাড়াতাড়ি আপনার নিকটস্থ ইউনিয়ন পরিষদে গিয়ে সে সম্পর্কে যোগাযোগ করতে পারেন।

এতে করে, তারা আপনাকে জন্ম নিবন্ধন হেল্পলাইন হিসেবে সাহায্য করবে এবং আপনি চিন্তিত অবস্থা থেকে মুক্তি পেতে পারেন।

যেহেতু, বর্তমান সময় হল ইন্টারনেটনির্ভর এছাড়াও বাংলাদেশ ডিজিটাল বাংলাদেশ হিসেবে এগিয়ে যাচ্ছে। সেজন্য, আপনি চাইলে ওয়েবপোর্টালে সহায়তায় আপনার সম্পূর্ণ কাজ সম্পন্ন করতে পারেন।

এই কাজগুলো করার জন্য আমাদের ব্লগের পাবলিশ করা প্রত্যেকটি আর্টিকেল দেখে নিতে পারেন।

এর মধ্যে থেকে গুরুত্বপূর্ণ জন্ম নিবন্ধন রিলেটেড কয়েকটি আর্টিকেল হয়েছে মেনশন করা হলো।

জেনে নিনঃ

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top
Google News